বাতের ব্যথা দূর করার মন্ত্র

কেমন আছেন সবাই, আজকের পোস্টে আমি আপনাদেরকে বাত রোগ নাশ  করার একটি মন্ত্র দেবো । যে মন্ত্র এপ্লাই করলে কোন কিছু মালিশ ইত্যাদির না করা সত্বেও যেকোনো বাত রোগ সেরে যায় । এই সাইটে নিয়মিত তন্ত্র মন্ত্র টোটকা বিষয়ে পোস্ট করা হয় । সেই জন্য নিয়মিত এই সাইট ভিজিট করবেন ।

বাতের ব্যথা কোথায় কোথায় হয়,বাতের ব্যথার ওষুধের নাম কি,বাতের ব্যথা হলে কি করা উচিত,বাতের ব্যথা কেন হয়,বাতের ব্যথার ব্যায়াম,বাতের ব্যথার লক্ষণ,কি খেলে বাতের ব্যথা বাড়ে,বাতের ব্যথার ডাক্তার,

কিছুদিন আগে একটা বান উল্টে দেওয়ার মানে জিনি বান মেরেছে তাকে রিটার্ন দেওয়ার ফিরিয়ে দেওয়ার একটি মন্ত্র দিয়ে ছিলাম । যেখানে বলেছিলাম কচুপাতায় জল পড়ে রোগীর খাওয়াতে একই পদ্ধতিতে আজকের পোস্টে বাত রোগ নাশ করতে হলে মন্ত্র এপ্লাই করার জন্য আপনাকে কচু পাতার উপর জল তুলে নিয়ে এসে সেই জল পড়ে বাত ব্যাধি যুক্ত রোগীকে খাওয়াতে হবে । তো চলুন মন্ত্রটি দেখে  নেওয়া যাকঃ-


বাত ব্যাধি নাশ করার জল পড়া মন্ত্রঃ-

বাত রে বাত, জানলাম তোর জাতি ।

অমাবস্যা মঙ্গলবারে তোর উৎপত্তি ।

উবয়া বাত, পুইয়া বাত,জুইয়া বাত ।

পাথরিয়া বাত , সজষ্টিয়া বাত ।

রাম বলেন হরুৎ , লক্ষণ বলে চল চল ।

অমুকের অঙ্গ থাকিয়া পৈল লঙ্কায় পর ।

সিদ্ধিগুরু শ্রীরামের আজ্ঞে । গঙ্গা যমুনা ত্রিবেনী ।

অমুকের কাহিনী অমুকের খন্ড কও ঠনামনি ।।


কোন সুর তাল ছন্দ না থাকলেও এই মন্ত্র দাঁড়ায় আপনাকে কাজ করতে হবে কচু পাতার উপর জল তুলে নিয়েছে মন্ত্রটি সাত বার বলে সাতটি জলে দেবেন । একবার মন্ত্র বলে একটি ফুঁ , আর মন্ত্র বলে একটি ফুঁ , এই ভাবে সাতবার মন্ত্র বলে তুলে আনা কচু পাতার জলে ফুঁ দিয়ে রোগীকে খাইয়ে দিবেন । এমনটি পর পর তিন দিন করতে হবে । এটি শুরু করতে হবে যে কোন মঙ্গলবার দিন থেকে । মঙ্গলবার ছাড়া অন্য কোন দিন কচুপাতায় জল পড়ে মন্ত্র বাত ব্যাধি রোগ জন্য এপ্লাই করবেন না । আশা করি বুঝতে পেরেছেন । বুঝতে না পারলে কমেন্টে লিখে দেবেন । ধন্যবাদ 


Tag...
বাতের ব্যথা কোথায় কোথায় হয়,বাতের ব্যথার ওষুধের নাম কি,বাতের ব্যথা হলে কি করা উচিত,বাতের ব্যথা কেন হয়,বাতের ব্যথার ব্যায়াম,বাতের ব্যথার লক্ষণ,কি খেলে বাতের ব্যথা বাড়ে,বাতের ব্যথার ডাক্তার,

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন